Love Story-মিষ্টি_বউয়ের_দুষ্টু_বর

Love Story-মিষ্টি_বউয়ের_দুষ্টু_বর

ঝিনুক:- এই শুনছ ? Love Story
আমি:- হুম!
ঝিনুক:- উঠ, নামাজের সময় হয়ে যাচ্ছে তো?
আমি:- আরেকটু!
ঝিনুক:- এই পাগল, উঠ তো, নামাজ পড়ে এসে ঘুমিও?
আমি:- হুম.
ঝিনুক:- হুম কি…??? উঠ বলছি?
আমি:- আরেকটু….
ঝিনুক:- আরেকটু কি…??
আমি:- ঘুমাই আরেকটু,
ঝিনুক:- জামাত পাবে না তখন,আরে উঠনা,
আমি:- আরেকটু ঘুমাই,
ঝিনুক:- দাঁড়াও, সেই কখন থেকে আদর করে ডাকছি বলে কথা গায়ে লাগছে না না,
আমি:- একটু ঘুমাব,


ঝিনুক:- হুম অনেকটা ঘুমাও,
আমি:- বলেই চুলের আগা দিয়ে কানে সুরসুরি দিতে লাগল পাগলিটা, এত অত্যাচার করলে কি ঘুমানো যায়, ছুটির একটা দিন,একটু তো ঘুমাতে দিবে….
ঝিনুক:- নামাজ পড়ে এসে যত ইচ্ছা ঘুমিও?
আমি:- যাচ্ছি যাচ্ছি, তখন যে কত ঘুমাতে দিবে আমার জানা আছে,একটা দিন নামাজ না পড়লে কি হয়!ঝিনুক:- একটা দিন নামাজ না পড়লে যে আপনাকে অনেকটা দিন জাহান্নামে থাকতে হবে, আর আমি ঐটা চাই না, আপনার সাথে একসাথে জান্নাতে থাকতে চাই!


আমি:- বলেই কান্না কান্না ভাব করে ফেলেছে,পাগলিটাকে বুকে জড়িয়ে নিয়ে বললাম, সরি পাগলিটা, এই তোমায় বুকে নিয়ে নাকে নাক ঘষে বলছি আর কখনই এমন করব না, সময়ের নামাজ সময়ে পড়েনিব,আমিও চাই তোমার সাথে জান্নাতে থাকতে.বলেই কপালে একটা মিষ্টি একে দিলাম পাগলিটার এই কথা গুলোই প্রমান করে পাগলিটা আমায় কতটা
ভালবাসে,কতটা ভয় পাই আমাকে হারানোর,
ঝিনুক:- অনেক হয়ছে এবার উঠেন, চলেন দ্রুত গোসল করে নিয়ে মসজিদে যাবেন, আধা ঘন্টা সময় আছে জামাতের, যেতেও তো সময় লাগবে,
আমি:- হুম চলো টাওয়েল দাও,
ঝিনুক:- এই নাও,

Love Story-মিষ্টিবউয়ের দুষ্টু_বর


আমি:- আমিও নিয়ে বাথরুমে ঢুকলাম, পাগলিটা অনেক আগেই উঠেছে, নিজে গোসল করে রেডি হয়ে গিয়ে আমায় ডাকছিল, এইটা ওর নিয়মিত কাজ, নিজে গোসল সেরে রেডি হয়ে আমার মাথার পাশে গিয়ে বসবে, এর পর মাথাটা ওর কোলের উপর তুলে নিবে, চুলের মাঝে ওর আঙ্গুল ঢুকিয়ে দিয়ে আদর করবে আর ডাকবে, আমিও ঐ সময় ওর কোমড় জড়িয়ে ধরে থাকি,,
ঝিনুক:- ঐ বাবুর আব্বু, আপনার গোসল কি হলো?
আমি:- হুম বাবুর আম্মু এইত, ওযু করছি,
ঝিনুক:- দ্রুত সময় চলে যাচ্ছে তো,


আমি:- এইত এসে গেছি মহারানী, বলে খাটের উপর থেকে টাওজার নিয়ে পড়লাম,পান্জাবিটা পাগলিটা নিজেই পড়িয়ে দিল, এর পর পান্জাবির বোতাম লাগানোর সময় আমার দুই পায়ের পাতার উপর নিজের দুই পা দিয়ে দাঁড়াল আর আমি পাগলিটার কোমড় দুই হাতে ধরে রাখলাম,ঝিনুক বোতাম লাগাচ্ছে আর আমি ওর মুখের দিকে তাকিয়ে আছি…. কি মায়াবি চেহারা, গোলস করে আসাতে মুখটা আরো বেশি পবিত্র ও নিঃপাপ মনে হচ্ছে,
ঝিনুক:- এইযে জনাব, কাজ তো শেষ, অমন করে কি দেখেন হু?
আমি:- সাতটা নয় পাঁচটা নয় আমার একটাই মাত্র বউ, তাকেই দেখি….
ঝিনুক:- অত রোমান্টিক হতে হবে না, মসজিদে যান,বলে নিজেকে ছাড়িয়ে নিল, বাইরের পথ দেখিএ বলল এখন আসেন জনাব!
আমি:- আমিও রওনা দিলাম মসজিদে, ঝিনুক বাইরের দরজা পর্যন্ত আসল,বিদায় জানিয়ে মসজিদে পা বাড়ালাম/

Similar Posts

6 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.