আলবার্ট আইনস্টাইন

আলবার্ট আইনস্টাইনঃ-যারা আমাকে সাহায্য করতে মানা করে দিয়েছিল , আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ কারণ -তাদের জন্যই আজ আমি নিজের কাজ নিজে করতে শিখেছি ।এই রকমই মনে করেন পৃথিবীর বিখ্যাত বিজ্ঞানী আইনস্টাইন । আইনস্টাইন এর কিছু কথা আপনাদের সাথে শেয়ার করব- আইনস্টাইন এর জন্ম ১৪ ই মার্চ ১৮৭৯ সালে জার্মানির ইউং নামক শহরে। ওনার  বাবার নাম ছিল হারমান আইনস্টাইনের।  তিনি একজন ইঞ্জিনিয়ার ছিল ।

আইনস্টাইন ছোটবেলা থেকেই অন্য ছেলে মেয়েদের থেকে আলাদা ছিল। সাধারণত বাচ্চা ছেলেদের ডের থেকে দুবছর লাগে কথা বলতে, কিন্তু আইনস্টাইনের কথা বলতে ৪ বছরে সময় লেগে যায়।  

সঠিক ভাবে কথা বলতে ৯ বছর সমায় লেগে যায় । যার ফলে ওনার  বাবা-মা ভবিষ্যৎ নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলেন। আইনস্টাইনের তার সাথের বাচ্চা দের সাথে কখনো  খেলা করতো না ।তিনি  নিজেই তার একটি নতুন জগৎ তৈরি করে রেখেছিলেন।।

তিনি ঘুরতে যেতে খুব ভালোবাসত তাই প্রতি রবিবারে তিনি তার বাবার সাথে কোনো নির্জন স্থানে ঘুরতেন । আইনস্টাইন ভাবতে, খুব ভালোবাসতেন আর সব সময় তিনি মনে করতেন পৃথিবী কি করে চলে।  

আলবার্ট আইনস্টাইনের স্কুল জীবন

যেহেতু আইনস্টাইনের কথা বলতে অনেকটা বয়স লেগে যায় । তাই তিনি স্কুলেও যান  অনেকটা বড় হয়ে। স্কুলে ওনার একদম ভালো লাগতো না। কারন টিচার যা পড়াতেন তা তার মন মতো হতো না । স্কুলটাকে আইনস্টাইন এর জেল এর মতো মনে হতো ,যেখানে   স্বাধীনতা ছিল না। 

স্কুলে আইনস্টাইন কে সবাই বোকা বোকা বলে রাগাত , তাই তিনি মনে করতেন তাঁর এখনো হয়তো বুদ্ধি হয়নি । এই নিয়ে তিনি এক টিচারকে বলেন স্যর কিভাবে বুদ্ধি বাড়াবো। টিচার তাকে বলে -অভ্যাসেই

হল সফলতার মূলমন্ত্র।  টিচার ওই কথাটি আইনস্টাইনের মনে গেঁথে যায় এবং তিনি মনে মনে বলেন  অভ্যাসের সাহায্যে  আমি একদিন সফল হয়ে যাব।  আর কিছুদিনের মধ্যেই লাগাতার অভ্যাসের ফলে ফিজিক্স ও ম্যাথ সফলতা লাভ করেছে যার।যার ফলে তিনি ফিজিক্স ও ম্যাথ অনেক নতুন নতুন ল আবিষ্কার করেন। আজকের দিনে আমরা যে ইন্টারনেট ব্যবহার করছে অনেকটা অবদান উনি রেখেছেন । উনি দেখিয়ে দিয়েছেন – যে একটা বোকা ছেলে যার কথা বলতে নয় বছর সময় লেগেছিল।

 নিজের সাহস ও পরিশ্রম দারা এই পৃথিবীতে  যে কোন কিছু করা যায়।  আমেরিকার  সরকার তার বুদ্ধি দেখে এতটাই ভয় পেয়ে গেছিলেন যে সবসময় ওনার সাথে করা সিকুরিতি দিয়ে রাখতো । যাতে ওনার আবিষ্কার এর অপ ব্যাবহার না  হয়। আইনস্টাইন সারাটা জীবন -মানুষের জীবনকে ভালো করা পৃথিবীতে অগ্রগতির দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য, নিজের জীবন উজাড় করে দিয়েছেন ১৮ এপ্রিল হাজার ১৯৫৫ সালে ৭৬ বছর বয়সে পৃথিবী ছেড়ে বিদায় নেন  । আইনস্টাইন

22 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.